Sunday, March 1, 2020

ভারতবর্ষ (Bharat borso) || কবি দেবেশ ঠাকুরের কবিতা

ভারতবর্ষ



ভারতবর্ষ মানে কোন
আর্ট পেপারে আঁকা জলরঙের মানচিত্র নয়
ভারতবর্ষ মানে শুধু
হর্ষবর্ধন কিংবা বাবরের বিজয়বার্তা নয়
ভারতবর্ষ মানে
বিজয়সিংহের সিংহল জয়ের ফ্যাসিষ্ট গৌরবগাথা নয়
ভারতবর্ষ মানে শুধু
মীনাক্ষীপুরম কিংবা জামা মসজিদ নয়
ভারতবর্ষ মানে নেহেরুজির বংশানুবৃত্তি
কিংবা জিন্নাসাহেবের অলিখিত শ্বেতপত্র নয়

ভারতবর্ষ মানে এক ভালবাসা
আমার তোমার শব্দের সঙ্গীতের জীবনের আকাশের মাটির
আমাদের প্রাইমারি স্কুলে
কলু খাঁ সাহেব
সাদা দাড়ি মাথায় ফেজ
ড্রিল করাতেন আমাদের – ডান বাঁ – ডান বাঁ-
সস্নেহে সতর্ক করতেন, বাপা সকল
পা আর হাত মিলিয়ে মিলিয়ে ফেল
কলু খাঁ সাহেবের গোরের মাটিতে
আজ ফেরেস্তার হাসি
ভারতবর্ষের চেরাগ হয়ে জ্বলছে

বদ্রু মিঞার হাতের কর্ণিকে
শিবমন্দিরের গায়ে কত ফুল কাটা
আর তার জোগাড়ে হয়ে
মশলা মাখছে ঈশান বাউরি
নিয়ামত সেখ আর গোকুল মাহাতো
এক পাটাতনে ধান ঝাড়ে
সোনালি গোবিন্দভোগে
খামারে ঠিকরে পরে সোনালি আলো

পদন মাঝি দাঁড় টানতো যুবতী গঙ্গায়
বৈঠা ধরত হোসেনুর মাঝি
-সামলে চলো মাঝি,ছামুতে কাঁচা খাকির গাঙ
চো্রাবালির চর আর
ঘূর্ণিজলার ঘাট
আমার ভারতবর্ষে কোন গেরুয়া রাজনীতিবিদ কিংবা
ইমামের নির্দেশিকা নেই
এখানে কোন সংহিতা – হাদিশ ছাড়াই
কোজাগরি চাঁদের অকৃপণ আলো পড়ে ইদগা-র উপর
আর রমজানী চাঁদ তুলসিমঞ্চের গায়ে
পূর্ণ আলো দেয়

আমার ভারতবর্ষ মানে
রবি ঠাকুরের মধ্যে নজরুল
রবিশঙ্কর আর আলি আকবের যুগলবন্দি
গণেশ পাইন আর মকবুল ফিদার রঙিন ছবি
আমার ভারতবর্ষ মানে
লালন ফকিরের গান
আমার ভারতবর্ষে আমি শুনেছি
মহম্মদ রফির সঙ্গে লতার ডুয়েট
দেখেছি পাল্লা দিয়ে আজহারের সঙ্গে সচিনের দৌড়
খেলার মাঠের প্রান্তে দাঁড়িয়ে শুনেছি
নঈমউদ্দিনের তদারকি চিৎকার-
‘বিজয়ন- আকিল- কুলজিৎ - বাইচুং-
মাঠটাকে আরও বড়ো কর’ –

মাঠ দিন দিন ছোট হয়ে যাচ্ছে
মাঠটাকে আরও বড়ো করা দরকার

অনেক অনেক বড়ো...

--- দেবেশ ঠাকুর

0 comments: