Wednesday, April 1, 2020

Bangla Kobita : Karmatar Ajo Kande(কার্মাটার আজও কাঁদে )

Karmatar Ajo Kande(কার্মাটার আজও কাঁদে )

Bangla Kobita : Karmatar Ajo Kande(কার্মাটার আজও কাঁদে )

নাম বৃষ্টি ওঝা। ক্লাস ইলেভেন ।পটলচেরা চোখ ।যার মুখ জুড়ে ভেসে উঠতো সবুজ পল্লীর স্নিগ্ধতা ।মেরে কেটে মেয়েটির বয়স ষোলো কি সতেরো । সুন্দর গড়ন। তার লম্বা খোলা চুলে ঢলে পড়তো রক্তিম বিকেল। কিন্তু হায়নাদের  নজর পড়েছে তার  শরীরের উপর। বাড়িতে আসতে লাগলো প্রস্তাবের পর প্রস্তাব । বয়স বাড়লে ঝুলে যাওয়া চামড়ায় চোখ ধাঁধানো রূপটা চলে যেতে পারে। যাকে বলে -এখন সে কচি মেয়ে কারণ মেয়েদের নাকি  কুড়ি পেরোলেই বুড়ি   । এই সময় বিদেয় করতে  পারলে -প্রায় ফ্রিতে বা অনেক কম খরচে কাজটা হাসিল হতে পারে কিন্তু বয়স বাড়লে আসতে থাকা সুযোগগুলো হয়তো আর পাওয়া যাবে না। এই ভয়ে বৃষ্টির বাবা রতন ওঝা আতঙ্কিত। খেটে খাওয়া লোকটি তাই সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেললো , মেয়েকে বিদায় করার । বৃষ্টির ইচ্ছা-অনিচ্ছা চাপা পড়লো প্রখর দহনে। দরিদ্রতার নীল ব্যথায় সেই পৃথিবী এখনো  খুব ক্লান্ত। লাঞ্ছিত মানুষের কান্না প্রতি নিঃশ্বাসে আনে লজ্জা। বৃষ্টির কাছে দৃশ্যগুলো অবশেষে ঝড় হয়ে ওঠে। তছনছ হয় প্রহর। এতো আর শহরের জলছবি নয়, গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষের বাস্তব গভীর যন্ত্রণা। বৃষ্টির বিয়ের রজনীগন্ধা মালাটা আস্তে আস্তে অভিযোগ আর অন্যায় শাসনে ভরে উঠলো। ঋতুমতী হলেই শাশুড়ির কড়া ধমক - বৌমা, তুমি আজ তুলসী তলায় সন্ধ্যা দেবে না তাহলে বাড়ির অমঙ্গল হবে। এইসব শুনে শুনে বৃষ্টিতো মেঘহীন রোদে পুড়তে পুড়তে বেলে পাথরের মত শক্ত হয়েছে। বৃষ্টি হলো সমাজের কোণে কোণে লুকিয়ে থাকা শ্রাবণের-  আঝোর কান্না , আমরা যাকে 'নিয়ম' বলে বুক ফাটাই ।সারাদিন বুঁদ হয়ে থাকা মাতাল স্বামীর অত্যাচার ও লালসা মুখ বুজে সহ্য করতে করতে বৃষ্টি ও একদিন মা হলো। জন্ম নিলো ফুটফুটে এক কন্যা সন্তান। ব্যাস- মেয়ের জন্ম দিয়েছে বলে চললো অকথ্য গালিগালাজ আর  জন্ম অশৌচের খপ্পড়ে পড়ে বন্ধ হল বাড়ির পবিত্র পুজো । দুশোটি বছর পেরিয়ে গেছে কিন্তু দুশোটি  অন্ধকার পেরোতে পারলাম কই?? বৃষ্টির শুধু মনে পড়ে ক্লাসে বলতে থাকা প্রদীপ স্যারের সেই কথাগুলো। "একটি জাগরণের নাম- বিদ্যাসাগর, নারীমুক্তির নাম- বিদ্যাসাগর, একটি কুসংস্কারমুক্ত সমাজের নাম বিদ্যাসাগর।

অডিও শোনার জন্যে নিচের লিংক এ ক্লিক করুন -

0 comments: